ট্যাগগুলি » সেক্স

বিয়ে বাঁচাতে যখন অচেনা লোকের সাথে রাত কাটাতে হয়...

গতকাল রাতে নিউজ ফিড চেক করতে করতে কোন একটা রিপোর্ট পড়ার জন্যে ঢুকলাম বিবিসি বাংলার ওয়েবসাইটে। হঠাৎ করেই চোখ আটকে গেলো সাইডবারে থাকা অন্য একটা লেখার

কোরান

ব্রিটিশ শিশুদের মধ্যে বেড়ে চলেছে সেক্সটিং

লন্ডন, ১১ জুলাই- যুক্তরাজ্যের হাজারো শিশু নিজেদের মধ্যে অশ্লীল ছবি ও বার্তা আদান-প্রদানে (সেক্সটিং) জড়িত বলে সম্প্রতি এক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে। এদের মধ্যে পাঁচ বছর বয়সী একটি বালকও রয়েছে।

গত তিন বছরে ইংল্যান্ড এবং ওয়ালসে ১২ বছরের কম বয়সী ৪০০ শিশুকে এ বিষয়ে জেরা করেছে ব্রিটিশ পুলিশ। বিভিন্ন পরিসংখ্যানের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, শিশুরা নিজেদের অশ্লীল ছবি তুলে অন্যকে তা পাঠায়।

ব্রিটিশ আইন অনুসারে, ১৮ বছরের কম বয়সী কোনও ব্যক্তির জন্য এ ধরনের ছবি ধারণ কিংবা প্রেরণ- উভয়ই অবৈধ। এমনকি নিজের ছবিও।

বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ডুরহাম কাউন্টির পাঁচ বছরের বালকটি স্থানীয় পুলিশের সঙ্গে কথা বলেছে। পুলিশ যাদের বিষয়ে তদন্ত করেছে, তাদের মধ্যে সবচেয়ে কম বয়সী শিশু এই বালক।

পুলিশ কর্মকর্তা স্টিভ থুবর্ন জানান, শিশুদের নিরাপত্তার স্বার্থেই তারা সেক্সটিংয়ের ঘটনা তদন্ত করেন। জাতীয় অপরাধ সূচক অনুসারেই তাদের ঘটনাগুলো রেকর্ড করা হয়।

তিনি বলেন, ‘আমরা আনুপাতিকহারে ঘটনাগুলো তদন্ত করি এবং শিশুদের অপরাধী সাব্যস্ত করি না। স্কুলশিক্ষক এবং তরুণদের পরামর্শ ও নির্দেশনা দেয়ার জন্য আমরা অন্য সংস্থাগুলোর সঙ্গেও কাজ করছি। যেসব শিশু কোনও বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তির সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলতে সমস্যাবোধ করে, তাদের ১০১ নম্বরে কল করারও অনুরোধ করছি।’

২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত সেক্সটিংয়ে জড়িত ৪ হাজারের বেশি শিশুকে শনাক্ত করেছে ব্রিটিশ পুলিশ। এদের বেশিরভাগের বয়সই ১৩ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে।

ব্রিটিশ শিশুদের মধ্যে বেড়ে চলেছে সেক্সটিং

লন্ডন, ১১ জুলাই- যুক্তরাজ্যের হাজারো শিশু নিজেদের মধ্যে অশ্লীল ছবি ও বার্তা আদান-প্রদানে (সেক্সটিং) জড়িত বলে সম্প্রতি এক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে। এদের মধ্যে পাঁচ বছর বয়সী একটি বালকও রয়েছে।

গত তিন বছরে ইংল্যান্ড এবং ওয়ালসে ১২ বছরের কম বয়সী ৪০০ শিশুকে এ বিষয়ে জেরা করেছে ব্রিটিশ পুলিশ। বিভিন্ন পরিসংখ্যানের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, শিশুরা নিজেদের অশ্লীল ছবি তুলে অন্যকে তা পাঠায়।

ব্রিটিশ আইন অনুসারে, ১৮ বছরের কম বয়সী কোনও ব্যক্তির জন্য এ ধরনের ছবি ধারণ কিংবা প্রেরণ- উভয়ই অবৈধ। এমনকি নিজের ছবিও।

বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ডুরহাম কাউন্টির পাঁচ বছরের বালকটি স্থানীয় পুলিশের সঙ্গে কথা বলেছে। পুলিশ যাদের বিষয়ে তদন্ত করেছে, তাদের মধ্যে সবচেয়ে কম বয়সী শিশু এই বালক।

পুলিশ কর্মকর্তা স্টিভ থুবর্ন জানান, শিশুদের নিরাপত্তার স্বার্থেই তারা সেক্সটিংয়ের ঘটনা তদন্ত করেন। জাতীয় অপরাধ সূচক অনুসারেই তাদের ঘটনাগুলো রেকর্ড করা হয়।

তিনি বলেন, ‘আমরা আনুপাতিকহারে ঘটনাগুলো তদন্ত করি এবং শিশুদের অপরাধী সাব্যস্ত করি না। স্কুলশিক্ষক এবং তরুণদের পরামর্শ ও নির্দেশনা দেয়ার জন্য আমরা অন্য সংস্থাগুলোর সঙ্গেও কাজ করছি। যেসব শিশু কোনও বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তির সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলতে সমস্যাবোধ করে, তাদের ১০১ নম্বরে কল করারও অনুরোধ করছি।’

২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত সেক্সটিংয়ে জড়িত ৪ হাজারের বেশি শিশুকে শনাক্ত করেছে ব্রিটিশ পুলিশ। এদের বেশিরভাগের বয়সই ১৩ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে।

'আর ক টা দিনই তো' একটা অভিশাপ | জাহিদ রাজ রনি

দূরে থাকলে ভালোবাসা বাড়ে – এইরুপ প্রচলিত কথাটার মধ্যে কিছু ঘাপলা আছে বলে মনে হয় আমার। দূরে থাকলে ভালোবাসা বাড়বে যদি সম্পর্কে নিশ্চয়তা থাকে; অর্থাৎ মানুষটা বউ কিংবা একান্ত বাধ্যাগত প্রেমিকা হলে। সেক্ষেত্রেও ভালোবাসা খুব একটা বাড়ে বলে মনে হয়না, মানুষটারে কাছে পাবার আগ্রহই বাড়ে কেবল।

চোখের আড়াল হলেই ভালোবাসা কমে, রোজ একটু একটু করে কমে। অতি সুন্দরী প্রেমিকাও দশদিন চোখের সামনে না থাকলে এগারো দিনের দিন তুলনামূলক অসুন্দর, কিন্তু চোখে চোখে থাকে এমন কাউকে ভালো লাগতে শুরু করবে। এটাই হয়, এটাই নিয়ম।

দূরে থাকলে ভালোবাসা বাড়ে, এটা কেবল শান্তনা। বিষয়টা অনেকটা মোবাইল চার্জের মতো। চার্জার আনপ্লাগ করলে চার্জ কমতে থাকে আর প্লাগইন করলে কমার তুলনায় দ্রুততম সময়ে চার্জ হয়ে যায়। প্রেমিকা/প্রেমিকা দূরে থাকলে ভালোবাসা কমতে থাকে এবং অনেকদিন পর দেখা হলে ভালোবাসা আবার একটু গতী পায়!

কাছে থাকাতে বিশেষ সমস্যা না হলে কাছেই থাকুন। ছোটখাটো ত্যাগ করে হলেও কাছে থাকার চেষ্টা করুন। সময় চলে যাবে, অপেক্ষা করে মরে যাবেন- কাছে পাবার সময় হয়ে আসলে অবেলায় মানুষটা টুপ করে অন্যের হয়ে যাবে। কিচ্ছু কি করার আছে…?

জাহিদ রাজ রনি

ইফতারের দাওয়াত দিয়ে নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণ এবং অন্যান্য

“ইফতারের দাওয়াত দিয়ে নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণ” যে দেশে হয়, সে দেশেই বিধর্মীরা প্রতিদিন ইফতার/সেহরি তুলে দিচ্ছেন অনেক মানুষের মাঝে। ধর্ষণ, ইফতার নিয়ে হাতাহাতি টাইপ কিছু ব্যাপার বাদ দিলে রমজান আসলেই বছরের অন্য এগারো মাসের তুলনায় চমৎকার সৌহার্দপূর্ন একটা সময়!

ঢাকার সবুজবাগে বৌদ্ধ বিহারে গত সাত বছর ধরে বৌদ্ধ ভিক্ষুরা নিজেরা চাঁদা তুলে ইফতার বিতরণ করছেন ছিন্নমূল মানুষের মাঝে। প্রতিদিন প্রায় সাড়ে তিনশ মানুষ এখান থেকে ইফতার খেয়ে রোজা পূর্ণ করেন। এটাই রোজার মহত্ত্ব! বছরের আর এগারো মাস এই দৃশ্য পাওয়া যাবেনা। বাসবো বৌদ্ধ মন্দিরেও গত পাঁচ বছর ধরে প্রতিদিন নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়া ঢাকার আটটি স্পটে ১ টাকায় বিনিময়ে সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের ইফতার/সেহরি দিচ্ছে একটা সংগঠন।

এই সেহরি খেয়ে রোজা রাখছে অনেক মুসলিম। যে শহরে ইফতারের দাওয়াত দিয়ে শিশু ধর্ষণ করা হচ্ছে, সে শহরেই খুঁজলে এমন সৌজন্যতার নজির অনেক পাওয়া যাবে! এইসব মানুষদের জন্যে ভালোবাসা যারা মানুষকে মানুষ ভাবে, মালাউন কিংবা জঙ্গি না!

জাহিদ রাজ রনি

হযরতের কামলীলা, পর্ব-২

সব মুসলমান কথিত নবী মোহাম্মদ সম্পর্কে ভুল ধারণা পোষন করে। যেমনঃ

মুসলমানরা বিশ্বাস করে-
নবী মুহাম্মদ আত্মরক্ষার্থে যুদ্ধ করতেন। তিনি কখনই আগ বাড়িয়ে হামলা করতেন না। কাফেররা আক্রমণ করার পর মুহাম্মদ সেটা প্রতিহত করতেন মাত্র। 350 more words

মোহাম্মদ

হযরতের কামলীলা, পর্ব-১

ইসলামের আলোকে সেক্স এবং নবী মুহাম্মদের সেক্সলাইফ নিয়ে ভিডিও সিরিজ “হযরতের কামলীলা”। আজ প্রকাশিত হলো এর প্রথম পর্ব। পরবর্তী পর্বগুলোর আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমার ইউটিউব চ্যানেলে। এই ভিডিও সিরিজে রেফারেন্স সহকারে আলোচনা করে নবী মুহাম্মদের মুখোশ খুলে দেয়া হবে। সঙ্গেই থাকুন।

এই পর্বের রেফারেন্সগুলোও পরবর্তী পর্বগুলোর মত সুন্দর ও নিখুঁতভাবে বিস্তারিত উল্লেখ করা হবে লিঙ্কসহ। যতদিন আপডেট করার সময় না পাচ্ছি, ততদিন ভিডিও থেকে রেফারেন্স নম্বর নিয়ে গুগুল করে নিজেই হাদিসগুলো বের করে নিবেন। কামলীলার সবগুলো পর্ব শেষ হলে এই পর্বের রেফারেন্স আপডেট করবোে।

মোহাম্মদ