ট্যাগগুলি » টিপস

গুরুত্বপূর্ণ_টিপস_অনেক_সময়_উপকারে_আসবে👏

১। রাতে একা একা হাটলে যদি বুঝতে পারেন

পিছে কেউ আছে, তাইলে শুধু ঘাড় ঘুরাবেন না।

পুরো শরীর ঘুরিয়ে দেখবেন। ঘাড় ঘুরালে মটকে দেবার সম্ভাবনা আছে।

Character Is Money

Money is lost

Nothing is lost

Health is lost

Something is lost

But

Character is lost

Everything is lost

So Be Careful About Your Character.

Character Is Money

Money is lost

Nothing is lost

Health is lost

Something is lost

But

Character is lost

Everything is lost

So Be Careful About Your Character.

চুলের যত্নে মুলতানি মাটি

একটি বাটিতে ৩/৪ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি, ১/২ টেবিলচামচ রিঠা পাউডার মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে রাখুন। প্যাকটি মিশিয়ে ১ /২ ঘন্টা রেখে দিন। তারপর চুলের গোড়াসহ পুরো চুলে ভালভাবে লাগান। ১০/১৫ মিনিট পর তা ভালো করে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই প্যাকটি আপনার চুলকে সিল্কি এবং মজবুত করবে।

শুষ্ক চুলের জন্য

৪ চা চামচ মুলতানি মাটি, ১/২ কাপ টক দই দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি চুলে ভালো করে লাগান। ১/২ ঘণ্টার পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এটি চুল পড়া রোধ করার সাথে সাথে প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসাবে কাজ করে থাকে। এই প্যাকটির সাথে লেবুর রস যুক্ত করতে পারেন। লেবুর রস আপনার চুলের খুশকি দূর করে থাকে। ২ টেবিল চামচ মধু যোগ করে নিতে পারেন চুলকে ঝরঝরে সিল্কি করার জন্য।

রুক্ষ চুলের জন্য

রুক্ষ চুল সিল্কি করার জন্য মুলতানি মাটি খুব ভালো কাজ করে। শ্যাম্পু করার আগের রাতে চুলে অলিভ অয়েল দিয়ে রাখুন। সকালে গরম পানিতে ভেজানো টাওয়েল দিয়ে চুল পেঁচিয়ে রাখুন ১ ঘণ্টা। এরপর মুলতানি মাটি, টক দই দিয়ে তৈরি প্যাক চুলে লাগান। প্যাকটি শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু দিয়ে ভালো করে চুল ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফল পেতে এই প্যাকটি প্রতি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন।

টিপস

ভ্রু’র খুশকি থেকে মুক্তি পেতে

শুধু চুলেই ‍খুশকি হবে এমন ধারণা রাখা মোটেও ঠিক নয়। মাথার মতো চোখের উপর থাকা ভ্রু জোড়াতেও খুশকি হতে পারে।

মাথার ত্বকের যত্ন নিন: মাথার ত্বকে খুশকি থাকলেই ভ্রু’তে হওয়ারও ঝুঁকি বেড়ে যায়। তাই চুল খুশকি মুক্ত করতে মাথার ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে। সে জন্য অ্যান্টিফাঙ্গাল শ্যাম্পু ব্যবহার করা উচিত। খুশকির সমস্যা বেশি হলে ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে তবেই শ্যাম্পু বেছে নিতে হবে।

আলতো করে ব্রাশ করুন: ভ্রু’র জন্য আলাদা ব্রাশ বা স্পুলি পাওয়া যায়। এর মধ্য থেকে নরম ব্রাশ বেছে নিয়ে ভ্রু ব্রাশ করে গুঁড়া খুশকি ঝেড়ে ফেলতে হবে। এই ধাপটি খুশকি পুরোপুরি দূর না করলেও পরবর্তী ধাপগুলোর কার্যকারিতা বাড়াতে সাহায্য করবে।

ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার: শুনতে অবাক লাগলেও ভ্রু খুশকি মুক্ত রাখতে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা জরুরি। শুষ্ক ত্বকে খুশকি বেশি হয়। বাদাম তেল, জলপাই বা নারিকেল তেল এবং কয়েক ফোঁটা ভিটামিন ই তেল মিশিয়ে রাতে ঘুমানোর আগে ভ্রু’তে ম্যাসাজ করতে হবে।

ওয়াক্সিং এড়িয়ে চলুন: যদি ভ্রু’র আশপাশে খুশকি বেড়ে যায় তাহলে ওয়াক্সিং এড়িয়ে চলতে হবে। বরং ভ্রু প্লাক করলে খুশকি হওয়ার ঝুঁকি কমবে।

মেইকআপ: মেইকআপ করার পর তা নিখুঁতভাবে পরিষ্কার না করলে ত্বকে নানান সমস্যা হতে পারে। তাই মেইকআপের পর রাতে ঘুমানোর আগে ভালোভাবে মেইকআপ তুলে টোনার এবং ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।

টিপস

মাস্কারা ব্যবহারের সাতপাঁচ

হাতের কাছেই রাখুন টিস্যু: অনেক সময় মাস্কারা ব্যবহারের পর পাপড়িগুলো একটি আরেকটির সঙ্গে আটকে থাকে এবং আঠালো হয়ে যায়। এর কারণ অতিরিক্ত মাস্কারার ব্যবহার। এই সমস্যা এড়াতে হাতের কাছেই রাখতে পারেন টিস্যু। পাপড়িতে মাস্কারার তুলি বুলিয়ে নেওয়ার আগে টিস্যু দিয়ে হালকা করে মুছে নিন, এতে পাপড়িতে অতিরিক্ত মাস্কারা লেগে যাওয়ার বিড়ম্বনা এড়ানো যাবে।

ঘন পাপড়ির জন্য বেবি পাউডার: যদি মাস্কারা দেওয়ার পরও পাপড়ির ঘনত্ব পছন্দ না হয় তাহলে প্রথম কোট হালকা শুকিয়ে আসলে তার উপর অল্প করে পাউডার ছড়িয়ে নিন। এরপর দ্বিতীয় কোট মাস্কারা বুলিয়ে নিন। পাপড়ির ঘনত্ব হবে মনের মতো।

লম্বা পাপড়ি চাইলে: সাধারণত মাস্কারার তুলি আমরা পাপড়ির গোড়া থেকে সামনে বুলিয়ে নেই। অনেকে আবার পাপড়ির শুধু সামনের অংশে মাস্কারা লাগান। এতে কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া যায় না। তাই মাস্কারা লাগানোর সময় তুলি প্রথমে পাপড়ির গোড়ায় হালকা হাতে ডানে-বামে করে তারপর সামনের দিকে বুলিয়ে আনতে হবে পাপড়ির আগা পর্যন্ত। এতে স্বাভাবিকের চেয়ে পাপড়ি দেখতে লম্বা লাগবে।

ঘনত্ব বাড়াতে: যদি পাপড়ি অতিরিক্ত পাতলা হয় তবে পাপড়ির উপরে ও নিচে দুপাশেই মাস্কারা লাগিয়ে নিতে হবে।
সঠিকভাবে ধরুন মাস্কারার তুলি: মাস্কারার তুলি শুধু পাপড়িতে বুলিয়ে নিলেই চলবে না। লম্বা পাপড়ির সঙ্গে বেশি ঘনত্ব চাইলে ব্রাশ আড়াআড়ি ভাবে ধরে সামনের দিকে ব্রাশ করুন, এর আগে পাপড়ির গোড়ায় হালকা হাতে তুলি ঘষে নিন। আর শুধু লম্বা পাপড়ি পছন্দ হলে আড়াআড়ি ভাবে ব্রাশ ধরে পাপড়িগুলোর উপর বুলিয়ে নিন।

চামচের ব্যবহার: চোখের নিচের পাপড়িতে মাস্কারা ব্যবহার বেশ কষ্টকর। তেমনি চোখের নিচে মাস্কারা লেগে পুরো মেইকআপ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন চামচ। পাপড়ির নিচে একটি চামচ উল্টো করে ধরে নিন। এতে মাস্কারা ত্বকে লেগে যাওয়ার ঝুঁকি থাকবে না।

শুকনা মাস্কারা নতুন করে তুলতে: দীর্ঘদিনের ব্যবহারে মাস্কারার বেতলে বাতাস ঢুকে ভেতরের তরল উপাদান শুকিয়ে যেতে পারে। তাই বলে শখের মাস্কারা ফেলে দিতে হবে না। কয়েক ফোঁটা স্যালাইন সলুশন, চোখের ড্রপ বা লেন্স সলুশন বোতলে ঢেলে দিলেই মাস্কারা আবার নতুনের মতো হয়ে যাবে

টিপস

পায়ের পরিছন্নতায়

নোংরা পানি কাদা আর ধুলাবালি তো পথ চললে পায়ে লাগবেই। কিন্তু সঠিক ভাবে পা পরিষ্কার করে এদের বিদায় আপ্নাকেই করতে হবে।
– যদি পা নোংরা হয়ে যায় তা সাথে সাথে ধুয়ে ফেলুন, সম্ভব না হলে
টিস্যু দিয়ে মুছে ফেলুন

– রাতে বাড়ি ফিরার পর ধরেন আপনি ফনে কথা বলছেন অথবা বাচ্চাদের পরাচ্ছেন সেখানে গরম পানির মধ্যে পা ডুবিয়ে রাখতে পারেন। এতে আপনার সারাদিন এর ক্লান্তির পাশাপাশি আপানার পায়ে লাগা ধুলা বালি ও পরিষ্কার হয়ে যাবে।

– এগুলি যদি প্রতিদিন সম্ভব না হয় সপ্তাহে অন্তত একদিন এই কাজগুলি করুন। সময় হলে পার্লার এ গিয়ে করে নিন পেডিকিউর। বাড়িতে বসে পেডিকিউর করার সিস্টেম জানা থাকলে তো আরও ভালো। আমরা চেস্টা করবো কোন ভিডিও দেয়ার জন্য যেটা দেখে আপনি শিখে নিতে পারবেন কিভাবে বাড়িতে বসে পেডিকিউর করে।

– রোদে পুড়ে কালো দাগ, ঘেমে পায়ে দুর্গন্ধ এগুলি দূর করতে-

# টক দই লেবুর রশ মিশিয়ে পায়ে লাগিয়ে কিছু সময় রেখে ধুয়ে ফেলুন।
# আনারস এর রস কিছু সময় পায়ে লাগিয়ে মেসেজ করতে পারেন
# কালো দাগ দূর করতে চালের গুঁড়া, মধু, লেবুর রস মিশিয়ে পায়ে লাগান
# লেবুর রস ও মধু এক সঙ্গে পায়ের গোড়ালি এবং আঙ্গুল এর ফাঁকে ভালো মত মেসেজ করলে পায়ের দুর্গন্ধ কম হয়।

সুত্র
প্রথম আলো

টিপস